বানান

ইদ অর্থ কি ঋতুস্রাব?

সম্প্রতি ‘ইদ’ শব্দটি নিয়ে বেশ বিতর্ক চলছে। কিছুদিন আগে এটা নিয়ে কয়েকটি পোস্ট আমার চোখে পড়েছে।
কয়েকজনের পোস্টে লেখা দেখলাম যে, খুশি বা ধর্মীয় উৎসব অর্থে ইদ শব্দটি ব্যবহার করা যাবে না। তাদের যুক্তি অনুযায়ী ইদ নাকি একটি খারাপ বিষয় নির্দেশ করে। তাদের মতে ইদ শব্দের অর্থ নারীদের মাসিক বা ঋতুস্রাব।

আসলেই কি তাই? প্রকৃতপক্ষে ইদ শব্দের অর্থ মাসিক বা ঋতুস্রাব নয়। আরবি ইদ্দত (عدة) শব্দের অর্থ ঋতুস্রাবকাল গণনা। ইদ্দত শব্দের আরও অর্থ আছে। যেমন—দিন, সংখ্যা। ইসলামে বহুল ব্যবহৃত ইদ্দতের অর্থ হচ্ছে ‘তালাক বা স্বামীর মৃত্যুর পর থেকে পুনরায় বিয়ের উপযুক্ত হওয়া (শরিয়ত মোতাবেক) পর্যন্ত সময়কাল, যেটা স্ত্রীকে পালন করতে হয়।

কিছু ব্যক্তির ধারণা ইদ্দত শব্দের মধ্যে ইদ শব্দের সব বর্ণ আছে, এজন্য দুটোর অর্থ একই। একটা শব্দের মধ্যে আরেকটা শব্দের সকল বর্ণের অস্তিত্ব থাকলে যে দুটোর অর্থ একই হবে এটা চিন্তা করা অযৌক্তিক।

নিচের শব্দগুলো একটু লক্ষ করুন :
আল, আলু
কল, কলপ
চুল, চুলো
মন, মন্বন্তর
ঘর, ঘোরা
বার, বার্তা
নিদ, নিদারুণ
কর, করুণ

ওপরের শব্দজোড়াগুলোতে কিন্তু দ্বিতীয় শব্দটির মধ্যে প্রথম শব্দের উপস্থিতি বিদ্যমান। কিন্তু তারপরেও দুটি শব্দের মধ্যে অর্থের ব্যাপক পার্থক্য রয়েছে। তাহলে ইদ্দত শব্দের মধ্যে ইদ শব্দের সকল বর্ণ থাকলে যে দুটো শব্দের একই অর্থ হবে সেটা নিতান্তই অবাস্তব। ইদ শব্দের অর্থ ঋতুস্রাব নয়।

দ্রষ্টব্য—তবে আপনি ইদ লিখবেন না কি ঈদ লিখবেন সেটা নিতান্তই আপনার ইচ্ছে।

সম্পূর্ণ দেখুন

ফারহান সাদিক শাহীন

পরিচালক, প্রমিত বাংলা চর্চা | শিক্ষার্থী (স্নাতক), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

মন্তব্য করুন

Back to top button
Close