বানান

দিক ও দিগ-এর ব্যবহার

দিকদিক হচ্ছে সমাস ও সন্ধিতে ক, খ, চ, ছ, ত, থ, প, ফ, শ, ষ, স ইত্যাদি বর্ণের আগে ব্যবহৃত দিগ-এর আরেক রূপ।
উপরিউক্ত যে-কোনো বর্ণের আগে দিগ-এর পরিবর্তে দিক বসবে। যেমন—
১. দিক্+চক্র = দিকচক্র
২. দিক্+পাল = দিকপাল
৩. দিক্+শূল = দিকশূল

দিগদিগ হচ্ছে সমাস ও সন্ধিতে গ, ঘ, ঙ, জ, ঝ, ড, ঢ, দ, ধ, ন, ব, ভ, ম, য, য়, র, ল, হ ইত্যাদি বর্ণের আগে ব্যবহৃত দিক-এর রূপ।
উপরিউক্ত যে-কোনো বর্ণের আগে দিক-এর স্থানে দিগ বসবে।
যেমন—
১. দিক্+অন্ত = দিগন্ত
২. দিক্+অন্তর = দিগন্তর
৩. দিক্+অম্বর = দিগম্বর
৪. দিক্+গজ = দিগ্‌গজ
৫. দিক্+দর্শন = দিগ্‌দর্শন
৬. দিক্+দিগন্ত = দিগ্‌দিগন্ত
৭. দিক্+বিদিক = দিগ্‌বিদিক
৮. দিক্+ভ্রম = দিগ্‌ভ্রম

দ্রষ্টব্যক. সন্ধিতে ঙ, ঞ, ণ, ন, ম ধ্বনি পরে থাকলে আগের অঘোষ অল্পপ্রাণ স্পর্শধ্বনি সেই বর্গীয় নাসিক্যধ্বনি হয়।
যেমন—
১. দিক্+নির্ণয় = দিঙ্‌নির্ণয়
২. দিক্+নাগ = দিঙ্‌নাগ

খ. স্বরধ্বনি থাকলেও দ্বিতীয় নিয়ম প্রযোজ্য হবে।

সম্পূর্ণ দেখুন

ফারহান সাদিক শাহীন

পরিচালক, প্রমিত বাংলা চর্চা | শিক্ষার্থী (স্নাতক), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

মন্তব্য করুন

Back to top button
Close